৬ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ  রাত ৮:১৭  ৪ঠা রবিউল-আউয়াল, ১৪৪২ হিজরী
২২শে অক্টোবর, ২০২০ ইং

ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীকে অপদস্তকারীদের মুক্তিযোদ্ধাদের পক্ষ থেকে ঘৃণা জানাচ্ছি : বেঙ্গল



নিজস্ব প্রতিবেদক

লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এলডিপি) প্রেসিডিয়াম সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা ইসমাঈল হোসেন বেঙ্গল বলেছেন, দেশবরেণ্য মুক্তিযোদ্ধা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী দেশের স্বাধীনতা সংগ্রামে স্বাস্থ্যখাতে স্ব-উদ্যোগে প্রতিষ্ঠা করেন ওয়ার হাসপাতাল। যা পৃথিবীর ইতিহাসে একটি বিরল ঘটনা।

যুদ্ধোত্তর বাংলাদেশে ব্যক্তিগত জীবনের কোন কাজে না গিয়ে তিনি দেশের স্বাস্থ্যযুদ্ধে গত ৫০ বছর ধরে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে আসছেন। জীবন সায়াহ্নে এসেও থেমে নেই কিৎবদন্তী এ মুক্তিযোদ্ধা। দেশ ও মানবতার কল্যাণে কাজ করে চলেছেন তিনি। কিন্তু, সরকার দেশপ্রেমিক বরেণ্য মুক্তিযোদ্ধা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর প্রতিষ্ঠিত গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের উৎপাদিত পরীক্ষা কীট গ্রহণ করেনি। বরং তাকে যেভাবে অপমান-অপদস্ত করেছে তাতে এদেশের মুক্তিযোদ্ধা, মুক্তিকামী মানুষের পক্ষ থেকে তথাকথিত রাষ্ট্রযন্ত্রে বসে থাকা কায়েমী স্বার্থবাদীদেরকে ঘৃণা জানাচ্ছি।
তিনি মঙ্গলবার (২৮ এপ্রিল) গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব কথা বলেন।

বীর মুক্তিযোদ্ধা বেঙ্গল বলেন, মহামারি করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) থেকে দেশের মানুষকে রক্ষার জন্য গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর নেতৃত্বে দেশেই উদ্ভাবন করা হয় স্বল্পমুল্যের পরীক্ষা কীট। যা দিয়ে স্বল্প সময়ে এবং অল্পখরচে করোনা পরীক্ষা সম্ভব। মানুষ বাঁচাতে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর এ কীট নিঃসন্দেহে দেশের মানুষের মাঝে আশার সঞ্চার করছিলো।

বেঙ্গল অভিযোগ করেন, করোনা ভাইরাস নিয়ে আন্তর্জাতিক চক্রের সাথে দেশিয়চক্র হাত মিলিয়ে দেশে গণহত্যার গভীর চক্রান্ত চালাচ্ছে। এছাড়া আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের সম্প্রতি বক্তব্যে যে যুদ্ধ কৌশলের কথা তিনি বলেছেন এতে গভীর ষড়ন্ত্রের কথা আমরাও বুজতে পেরেছি।

তিনি আরো বলেন, অনতিবিলম্বে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীকে যথাযোগ্যসম্মান দিয়ে গণসাস্থ্যকেন্দ্রের উদ্ভাবিত করোনা পরীক্ষা কীট গ্রহণ ও আরো কীট উৎপাদনে সহায়তার জন্য প্রধানমন্ত্রীর প্রতি উদাত্ত্ব আহ্বান জানাচ্ছি। এ মুহূর্তে আমরা দলমত নির্বিশেষে ঐক্যবদ্ধভাবে মানবিক কাজে সরকারকে সহযোগীতা করতে চাই।