৯ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ  সন্ধ্যা ৭:২৭  ৭ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪২ হিজরী
২৫শে অক্টোবর, ২০২০ ইং

ফরিদগঞ্জে লকডাউনে ঔষধ ও খাবারের অভাবে পোল্ট্রি খামারে দেড় হাজার মুরগীর মৃত্যু

শিমুল হাছান

মহামারি করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় লকডাউনের কারণে ফরিদগঞ্জে একটি পোল্ট্রি খামারে ঔষধ ও খাবার অভাবে দেড় হাজার ব্রয়লার মুরগীর মৃত্যু হয়েছে। এতে ব্যপক ক্ষতির মুখে পড়েছেন ওই খামারী।

জানা যায়, গত ২৫ মার্চ ফরিদগঞ্জ বাজারের মিজান প্রল্ট্রি থেকে দুই হাজার ব্রয়লার মুরগীর বাচ্ছা ক্রয় করে পোল্ট্রি খামারে তোলেন ৬নং গুপ্টি পশ্চিম ইউনিয়নের ষোলদানা গ্রামের তরুন উদ্যোক্তা নুরুন নবী। গত কিছুদিন পূর্বে ঝড়ে প্রায় ৩/৪ দিন বিদ্যুৎ না থাকায় হঠাৎ করে মুরগীর ঠান্ডা লেগে যায়। কিন্তু, দেশে চলমান লকডাউনে কারণে মুরগীর রোগ প্রতিরোধের জন্য সময়মত ঔষধ ও খাবার সংকটে পড়ে খামারের মালিক মো. নুরুন নবী দিশেহারা হয়ে পড়েন।

গত ২৮ এপ্রিল থেকে খামারির চোখের সামনে দৈনিক তিন থেকে চারশ মুরগী মারা যেতে থাকে। প্রায় দেড় দুই কেজি ওজনের দুই হাজার মুরগী থেকে জরুরী ভাবে ৫শ মুরগী দ্রুততম সময়ে সরানো গেলেও বাকি প্রায় ১৫শ বয়লার মুরগী মাটিতে গর্ত করে চাপা দেওয়া হয়েছে বলে জানান উক্ত ফার্মে নিয়োজিত শ্রমিক নোমান ও শাওন।

খামারের মালিক তরুণ উদ্যোক্তা মো. নরুন নবী এপ্রতিনিধিকে বলেন, দেশের চলমান লকডাউনের কারণে আমার ফার্মের প্রায় ১৫শ’ মুরগী চোখের সামনে মরে গেল। আমি মহাজনের পুরা টাকা দিতে পারিনি, এতে প্রায় এক লক্ষ বিশ হাজার টাকা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছি।