৯ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ  রাত ১১:০৯  ৭ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪২ হিজরী
২৫শে অক্টোবর, ২০২০ ইং

চোখ জুড়ানো ব্যাটিংয়ে কোহলি-রোহিতদের কাতারে সৌম্য

সৌম্য সরকার। প্রথম আলো ফাইল ছবিসৌম্য সরকার। প্রথম আলো ফাইল ছবিগ্রেগ চ্যাপেল ব্যাটিংয়ের সময় চোখ সরানো যেত না। তাঁরই ভাই ইয়ান চ্যাপেল আবার আলাদা। গ্রেগ ব্যাটিংয়ের ব্যাকরণ মেনে রান বের করতেন, নান্দনিক ব্যাটিংয়ের উদাহরণ। কিন্তু ইয়ান অনেকটা হালের স্টিভ স্মিথদের মতো একটু পিছিয়ে আড়াআড়ি নড়াচড়া করতেন।

একটু বুঝিয়ে বলা যাক। ইয়ান যে বল পয়েন্টে কাট করতেন, একই বল মিড উইকেটে পুল করতেন। ব্যাটিং সৌন্দর্যের ধার ধারতেন না। রান হওয়াই বড় কথা, সেটা যেভাবেই হোক।

অ্যালান বোর্ডারও অনেকটাই তাই। চোয়াল শক্ত করা প্রতিজ্ঞা ছিল বোর্ডারের ব্যাটিংয়ের মূল শক্তি। বোর্ডারের সময় আবার ইংল্যান্ডের হয়ে খেলতেন ডেভিড গাওয়ার। বাঁহাতি ব্যাটিং সৌন্দর্যে গাওয়ারের নাম উঠে আসবেই। ব্রায়ান লারা, সাঈদ আনোয়ারও ছিলেন গাওয়ার শ্রেণির ‘শিল্পী’।

ওয়াহ ভাইদের মধ্যে মার্ক ওয়াহর ব্যাটিং যে কেউই সপ্তাহে প্রতিদিন দেখতে চাইবেন, স্টিভ ওয়াহ নয়। তবে নিজের জীবনের জন্য ব্যাট করতে বলা হলে বেশিরভাগ স্টিভ ওয়াহকেই সবাই বেছে নেবেন। এখনকার ব্যাটসম্যানদের মধ্যে থেকে মার্ক ওয়াহ, ডেভিড গাওয়ারদের খুঁজে বের করার চেষ্টা করেছে ক্রিকইনফো।

সেরা ছয় নান্দনিক ব্যাটসম্যান নির্বাচন করেছে ক্রিকইফনো, যেখানে জায়গা করে নিয়েছেন বাংলাদেশের সৌম্য সরকার। এ ছাড়া কেন উইলিয়ামসন, বিরাট কোহলি, রোহিত শর্মা, বাবর আজম, কুশল মেন্ডিস আছেন এই তালিকায়। আলোচনায় ছিলেন আরেক বাংলাদেশি লিটন দাসও। লোকেশ রাহুল, মারনাস লাবুশেন, টম ল্যাথাম, জো রুট, মঈন আলী, জেমস ভিন্স, জস বাটলার, শাই হোপ, ধনাঞ্জয়া ডি সিলভা, সাদিরা সামারাবিক্রমার নামও এসেছে আলোচনায়।

বাঁহাতিদের ব্যাটিং এমনিতেই চোখে লেগে থাকে। সৌম্যর ব্যাট ‘সুইং’ বিশ্বের যে কোন বাঁহাতি ব্যাটসম্যানদের থেকে আলাদা। হাত ও চোখের সমণ্বয়ে এই বাঁহাতির জুড়ি নেই। যখন সৌম্য ব্যাট করেন, টিভির চ্যানেল বদলানো একটু কঠিনই বটে। লিটন দাসও কম যান না। টাইমিং ও কবজিতে লিটন দুর্দান্ত। কিন্তু ভোটাভুটিতে সেরা ছয়ে জায়গা হয়নি লিটনের।


সূত্র প্রথম আলো