১২ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ  বিকাল ৫:৪৯  ১০ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪২ হিজরী
২৮শে অক্টোবর, ২০২০ ইং

লিবিয়ায় বাংলাদেশী নিহত ও আহতদের পরিচয়

লিবিয়ায় মানব পাচারকারী চক্রের হাতে নিহত ও আহত বাংলাদেশীদের পরিচয় জানা গেছে। নিহত ২৬ জনের মধ্যে ২৪ জনের পরিচয় জানিয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

আজ শুক্রবার লিবিয়ায় অবস্থিত বাংলাদেশী দূতাবাস পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে তাদের পরিচয় পাঠিয়েছে।

নিহতরা হলেন- গোপালগঞ্জের সুজন ও কামরুল, মাদারীপুরের জাকির হোসেন, সৈয়দুল, জুয়েল ও ফিরুজ, রাজৈরের বিদ্যানন্দীর জুয়েল ও মানিক, টেকেরহাটের আসাদুল, আয়নাল মোল্লা ও মনির, ইশবপুরের সজীব ও শাহীন, দুধখালীর শামীম, ঢাকার আরফান, টাঙ্গাইলের মহেশপুরের লাল চান্দ, কিশোরগঞ্জের ভৈরবের রাজন, শাকিল, সাকিব ও সোহাগ, রসুলপুরের আকাশ ও মো. আলী, হোসেনপুরের রহিম এবং যশোরের রাকিবুল।

আহত ১১ জন হলেন- মাদারীপুর সদরের তীর বাগদি গ্রামের ফিরোজ বেপারী (হাঁটুতে গুলিবিদ্ধ), ফরিদপুরের ভাঙ্গার দুলকান্দি গ্রামের মো. সাজিদ (পেটে গুলিবিদ্ধ), কিশোরগঞ্জের ভৈরবের শম্ভপুর গ্রামের মো. জানু মিয়া (পেটে গুলিবিদ্ধ), ভৈরবের জগন্নাথপুর গ্রামের মো. সজল মিয়া (দুই হাতে মারাত্মকভাবে জখম ও মানসিকভাবে ভারসাম্যহীন), গোপালগঞ্জের মুকসুদপুরের বামনডাঙ্গা বাড়ির ওমর শেখ (হাতে মারাত্মকভাবে জখম ও আঙ্গুলে কামড়ের দাগ, দুই পায়ে গুলিবিদ্ধ), টাঙ্গাইলের মহেশপুরের বিনোদপুরের নারায়ণপুরের মো. তরিকুল ইসলাম (২২), চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গার মো. বকুল হোসাইন (৩০), মাদারীপুরের রাজৈরের মো. আলী (২২), কিশোরগঞ্জের ভৈরবের সোহাগ আহমেদ (২০), মাদারীপুরের রাজৈরের মো. সম্রাট খালাসী (২৯) এবং চুয়াডাঙ্গার বাপ্পী (মস্তিষ্কে গুলিবিদ্ধ, গুরুতর অবস্থা)।

আহত সবাই ত্রিপলি মেডিকেল সেন্টারে চিকিৎসাধীন আছেন বলে জানা গেছে।