৭ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ  রাত ২:৫৩  ৪ঠা রবিউল-আউয়াল, ১৪৪২ হিজরী
২৩শে অক্টোবর, ২০২০ ইং

চাঁদপুরে নমুনা সংগ্রহকারীরাই এখন করোনা আক্রান্ত

নিজস্ব প্রতিনিধি:

চাঁদপুরে করোনা উপসর্গের নমুনা সংগ্রহকারী আব্দুল মালেক মিয়াজী এখন নিজেই করোনা আক্রান্ত। জেলায় করোনা বিস্তার শুরু হলে নিজেই ৫ শতাধিক ব্যক্তির শরীর থেকে নমুনা সংগ্রহ করেন তিনি। গত ৫ দিন আগে একজনের নমুনা সংগ্রহ করতে গিয়ে নিজেই আক্রান্ত হয়েছেন। আব্দুল মালেক মিয়াজী চাঁদপুর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে সিনিয়র টেকলোলজিস্ট পদে কাজ করছেন।

চাঁদপুরে প্রতিদিন করোনা পজিটিভ রোগীর সংখ্যা বাড়তে শুরু করায় শুধু এমন একজন আব্দুল মালেক মিয়াজী একা করোনায় আক্রান্ত হননি। দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে জেলা বক্ষব্যাধী হাসপাতালের শাখাওয়াত হোসেন এবং সদর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপে¬ক্সের সহিদুল ইসলামসহ ৮ জন এখন করোনা পজিটিভ নিয়ে চিকিৎসাধীন।

জানা গেছে, ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট চাঁদপুর জেনারেল হাসপাতালসহ জেলার ৮ উপজেলায় ৩০ জন হেলথ টেকনোলজিস্ট কর্মরত আছেন। জেলায় করোনার বিস্তার শুরু হলে রোগীর বাড়ি বাড়ি গিয়ে এবং হাসপাতালে নমুনা সংগ্রহের দায়িত্ব পালন করতে থাকেন তারা। এদের মধ্যে জেনারেল হাসপাতালের সিনিয়র টেকনোলজিস্ট আব্দুল মালেক মিয়াজী একাই ৫ শতাধিক মানুষের নমুনা সংগ্রহ করেছেন। ঝুঁকি জেনেও মানুষজনের শরীর থেকে নমুনা সংগ্রহ করতে গিয়ে এদের কেউ’ই মনোবল হারাননি। গত এক সপ্তাহের মধ্যে আব্দুল মালেক মিয়াজী, শাখাওয়াত হোসেন এবং সহিদুল ইসলাম, তাদের সাহায্যকারী এবং একজন অ্যাম্বুলেন্স চালকসহ পরপর ৮ জন করোনা পজিটিভ হন।

মুঠোফোনে আব্দুল মালেক মিয়াজী জানান, মনোবল হারাইনি। ঘরের অন্যদের নিরাপদে রেখেই চিকিৎসা নিচ্ছেন বলে জানান।

চাঁদপুরে করোনা ফোকাল পার্সন ডা. সুজাউদৌলা রুবেল জানান, মূলত নানাধরনের রোগীর নমুনা সংগ্রহ এবং পরীক্ষা-নিরীক্ষার কাজ করেন থাকেন হেলথ টেকনোলজিস্টরা। এখন করোনার নমুনা সংগ্রহ করে তারা বাড়তি কাজ করছেন। এটি তাদের জন্য প্রচণ্ড ঝুঁকি বটে। তারপরও সতর্কতার সঙ্গে কাজ করতে গিয়ে নিজেরাই আক্রান্ত হচ্ছেন।

সিভিল সার্জন ডা. সাখাওয়াত উল্লাহ জানান, করোনার নমুনা সংগ্রহকারী, তাদের সাহায্যকারী এবং এসব নমুনা ঢাকায় পাঠাতে গিয়ে দায়িত্ব পালনকারী অ্যাম্বুলেন্স চালকও করোনা পজিটিভ। আক্রান্তরা সবাই তাদের বাড়িতেই চিকিৎসা নিচ্ছেন।