১৩ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ  রাত ২:১৬  ১০ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪২ হিজরী
২৯শে অক্টোবর, ২০২০ ইং

যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যানের মৃত্যুতে বীর মুক্তিযোদ্ধা ইসমাঈল হোসেন বেঙ্গলের শোক

নিজস্ব প্রতিবেদক :

যমুনা গ্রুপ, যমুনা টেলিভিশন এবং দৈনিক যুগান্তরের চেয়ারম্যান বিশিষ্ট ব্যবসায়ী নুরুল ইসলাম বাবুলের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি (এলডিপি) প্রেসিডিয়াম সদস্য ও অনলাইন নিউজ পোর্টাল ‘‘ডেইলি ফরিদগঞ্জ’’ এর প্রধান উপদেষ্টা সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা ইসমাঈল হোসেন বেঙ্গল।

সোমবার (১৩ জুলাই) গণমাধ্যমে পাঠানো এক শোকবার্তায় মহান মুক্তিযুদ্ধে রাজধানী ঢাকার বেঙ্গল প্লাটুনের কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা ইসমাইল হোসেন বেঙ্গল বিশিষ্ট ব্যবসায়ী নুরুল ইসলাম বাবুলের অবদানের কথা শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করেন।

শোক বার্তায় তিনি নুরুল ইসলাম বাবুলের সাথে দীর্ঘ দিনের বন্ধুত্বের স্মৃতি রোমন্থন করে বলেন, স্বাধীনতার পর থেকেই নুরুল ইসলাম বাবুলের সাথে আমার গভীর সক্ষ্যতা ও বন্ধুত্ব গড়ে উঠে। সত্তর দশকের শেষাংশে ব্যবসায়ীক কারনে বাবুলের ওয়াবদা বিল্ডিং এর অফিসে প্রায় দিনই আমার যাতায়াত ছিলো। ব্যবসায়ীক কারণে সেও আমার পার্টনার বন্ধু শহীদুল হক ভূঁইয়ার সাথে দেখা করতে পিডাব্লিউডিতে আসতো। তার মাধ্যমে আমরা যমুনা ফ্যান সরবরাহ এবং ইন্ডিয়ান ১০০০ এবং ৫০০ বৈদ্যুতিক বাতি ইমপোর্ট করতাম।

তার সাথে দীর্ঘ দিনের বন্ধুত্বের সর্ম্পক অবিচল ছিলো। প্রায় ফোনে তার সাথে কথা হতো, কুশলাদি বিনিময় হতো। গত এক বছর আগেও যমুনা ফিউচার পার্কে নুরুল ইসলাম বাবুলের নিজস্ব অফিসে ব্যবসায়ীক বিষয় নিয়ে তার সুকন্যা মনিকার সাথে দীর্ঘক্ষন আলোচনা করি।

নুরুল ইসলাম বাবুলের সাথে আমার তারুণ্য ও যৌবনে অনেক মধুর স্মৃতি রয়েছে। আজকে তাঁর মৃত্যুতে আমি গভীরভাবে শোকাহত, মর্মাহত। মহান আল্লাহর কাছে কায়মনে দোয়া করি আল্লাহ আমার এই সাহসী বীর মুক্তিযোদ্ধা বন্ধু দেশের বরেণ্য ব্যবসায়ী নুরুল ইসলাম বাবুলের জীবনের সব ভূলত্রুটি মাফ করে তাকে জান্নাতুল ফেরদৌস দান করুন। আমি মরহুমের শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

প্রসঙ্গত, করোনায় আক্রান্ত নুরুল ইসলাম বাবুল সোমবার (১৩ জুলাই) বিকাল ৪টায় মারা যান। নুরুল ইসলাম বাবুল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর গত ১৬ দিন ধরে ভেন্টিলেশনে ছিলেন। সোমবার বিকাল ৪টার দিকে তিনি এভার কেয়ার (সাবেক অ্যাপোলো) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

তার প্রতিষ্ঠিত যমুনা গ্রুপের ৩৮টি শিল্প প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে লক্ষাধিক মানুষের কর্মসংস্থান সৃষ্টি হয়েছে। দেশের শীর্ষ স্থানীয় দৈনিক যুগান্তর ও যমুনা টেলিভিশনেরও মালিক ছিলেন তিনি।