১৬ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ  রাত ৩:২৬  ১৩ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪২ হিজরী
১লা নভেম্বর, ২০২০ ইং

কলেজছাত্র ঘুরতে গিয়ে লাশ হয়ে পিরলেন

নিজস্ব প্রতিনিধি:

চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত কলেজছাত্র আবদুল কাদের জিলানী মারা গেছেন। ২৮ আগস্ট শুক্রবার সকালে রাজধানী ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

আবদুল কাদের হাজীগঞ্জ উপজেলার ২নং বাকিলা ইউনিয়নের ছয়চিলা তালুকদার বাড়ির মো. দুলাল তালুকদারের বড় ছেলে।

একই ইউনিয়নের আনোয়ার আলী মেমোরিয়াল স্কুল ও কলেজ থেকে এবার এসএসসি পাস করে ওই কলেজে মানবিক শাকায় ভর্তি হয়েছিলেন তিনি।

কাদের যে স্কুল এ-কলেজ পড়ে সেই আনোয়ার আলী মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয় এন্ড কলেজের প্রতিষ্ঠাতা পরিবারেরর সদস্য চাঁদপুর জজ কোর্টের আইনজীবী অ্যাডঃ মোঃ ইমাম হোসেন টিটু জানান, একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি কার্যক্রমের মাধ্যমে মানবিক শাখায় ভর্তি হয় আঃ কাদের। এসএসসিতে জিপিএ-৪.৫ পেয়েছে।

এর মধ্যে বৃহস্পতিবার সকালে আঃ কাদেরের প্রতিবেশী পিকআপ ভ্যান চালক রহিমের সাথে নিতান্ত শখের বশে হেলপার হিসেবে কাজ করতে যায় কাদের। গ্যাস সিলিন্ডার ভর্তি করে কাদেরের পিকআপ ভ্যান হাজীগঞ্জ বাজার পার হয়ে রামগঞ্জের দিকে রওনা দেয়। পথিমধ্যে হাজীগঞ্জের ধোয়াগন্ডা নামক এলাকায় বিপরীত দিক থেকে আসা ঢাকাগামী আল-আরাফাহ পরিবহনের একটি বাস দ্রুত গতিতে এসে পিকআপ ভ্যানটিকে সজোরে আঘাত করে। এতে করে পিকআপ ভ্যানটি দুমড়ে-মুচড়ে যায়। এ সময় কাদের মারাত্মক আহত হয়।

সেখান থেকে কাদেরকে পুলিশ উদ্ধার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পাঠায়। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্যে বিকেলের মধ্যে ঢাকার ইসলামী ব্যাংক হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। সেখানে প্রায় চবি্বশ ঘন্টা আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার সকাল ৯টায় মারা যায় সে।

বৃহস্পতিবার হাজীগঞ্জ রামগঞ্জ সড়কের রান্ধুনীমুড়া এলাকায় বাস ও পিকআপের মুখোমুখি সংঘর্ষে তিনজন আহত হয়।

এর মধ্যে আবদুল কাদেরের অবস্থা আশংকাজনক ছিল। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকায় প্রেরণ করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধী অবস্থায় আজ তার মৃত্যু হয়।

হাজীগঞ্জ থানার ওসি আলমগীর হোসেন জানান, আবদুল কাদের জিলানী সখ করে পিকআপে করে ঘুরতে বেরিয়েছিল। পরে বাসের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষে সে গুরুতর আহত হয়। শুক্রবার সকালে ঢাকায় তার মৃত্যু হয়েছে খবর পেয়েছি।

নামাজী, ভদ্র আর ভালো ছাত্র হওয়ার কারণে তার মৃত্যুতে এলাকাবাসীসহ তার সহপাঠীদের মাঝে শোকের ছায়া নেমে আসে। শুক্রবার বাদ আসর জানাজা শেষে পারিবারিক গোরস্থানে দাফন করা হয় কাদেরকে।