১০ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ  দুপুর ১:৩৩  ৮ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪২ হিজরী
২৬শে অক্টোবর, ২০২০ ইং

এইচএসসি পরীক্ষা নিয়ে অনিশ্চয়তা কাটছে না

নিজস্ব প্রতিনিধি:

কবে হচ্ছে এইসএসসি পরীক্ষা? চৌদ্দ লাখ পরীক্ষার্থী, তাদের অভিভাবক এবং সংশ্লিষ্টরা সবাই আছেন এই চিন্তায়। এ সুযোগে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব ছড়াচ্ছে কিছু অসাধু চক্র। শিক্ষামন্ত্রী বলেছেন, পরীক্ষা নেয়ার মতো পরিস্থিতি এখনও তৈরি হয়নি। স্বাস্থ্যঝুঁকির মধ্যে পরীক্ষা নিতে চায় না সরকার।

তবে উচ্চশিক্ষার প্রশ্ন জড়িত থাকায় পিইসি এবং জেএসসির পরীক্ষা বাদ দেয়া বা পরীক্ষার সংখ্যা কমানোর কোন পরিকল্পনা নেই। পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হলেই নেয়া হবে পরীক্ষা। করোনা পরিস্থিতির কারণে এরই মধ্যে ৫ মাস ধরে ঝুলে আছে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা। কবে হবে সে প্রশ্নের উত্তরও জানা নেই কারও। এ নিয়ে শিক্ষার্থী অভিভাবকরা আছেন দুশ্চিন্তায়।

পরীক্ষার্থী-অভিভাবকদের এ দুশ্চিন্তার সুযোগ নিচ্ছে কিছু অসাধু চক্র। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কিছু পেজ থেকে ১৫ই অক্টোবর পরীক্ষা হবে এমনে গুজব ছড়ানো হচ্ছে।

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি জানান, পরীক্ষা নেয়ার কোন সিদ্ধান্ত এখনো হয়নি। পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত কোন ঝুঁকি নিতে চায়না সরকার। জাতীয় জাদুঘরে শোক দিবসের এক আলোচনায় অংশ নিয়ে এসব কথা বলেন তিনি।

এ সময় শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন,’গুজবে কান দেবেন না। এই মুহুর্তে এতবড় স্বাস্থ্যুঝুঁকি আমরা নিতে পারি না।আমাদের দায়িত্বশীলভাবেই ভাবতে হবে। সে কারণে এইচএসসি পরীক্ষা নেবার মতো পরিবেশ নেই। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো খুলে দেবার বিষয়ে একই কথা। মোটেই এখন পরিস্থিতি তৈরী হয়নি। এই পরিমাণ স্বাস্থ্যঝুঁকি নেবার আমাদের সুযোগ নেই। যখন পরীক্ষা নেবার মতো পরিস্থিতি সৃষ্টি হবে, তখন দুই সপ্তাহের নোটিশ দিয়ে আমরা পরীক্ষা নিব। পরীক্ষা নেবার সকল প্রস্তুতি রয়েছে।’

উচ্চশিক্ষা এবং বিদেশে শিক্ষা নেয়ার বিষয়টি উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার ফলাফলের সঙ্গে জড়িত। তাই চাইলেই এ পরীক্ষা বাদ দেয়ার মত সিদ্ধান্ত নেয়া সম্ভব নয় বলে জানিয়েছেন মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক। মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর মহাপরিচালক প্রফেসর ড. সৈয়দ মো. গোলাম ফারুক বলেন, ‘জেএসসি, জেডিসি পরীক্ষা যত সহজে বাদ দেয়া যায়, এইচএসসি পরীক্ষা ততটা সহজে বাদ দেয়া যায় না। পরিস্থিতি একটু স্বাভাবিক হলেই আমরা পরীক্ষা নিব।’

আর করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হলে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার সিদ্ধান্তও নেয়া হবে না বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী।