৬ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ  বিকাল ৩:৫০  ৪ঠা রবিউল-আউয়াল, ১৪৪২ হিজরী
২২শে অক্টোবর, ২০২০ ইং

শনিবার থেকে অনুশীলন শুরু করবেন সাকিব

নিজস্ব প্রতিনিধি:

ক্রিকেট থেকে সাকিব আল হাসানের এক বছরের নির্বাসন শেষ হতে বেশি দেরি নেই। আবার আসন্ন শ্রীলঙ্কা সফরেই দলের সঙ্গে যোগ দেওয়ার একটা সুযোগও তৈরি হয়েছে।
দুইয়ে দুইয়ে চার মিলিয়ে এরইমধ্যে যুক্তরাষ্ট্র থেকে দেশে ফিরেছেন সাকিব আল হাসান। ক্রিকেটে ফেরার আগে আগামী ৫ সেপ্টেম্বর থেকে বিকেএসপিতে অনুশীলন শুরু করবেন বিশ্বের অন্যতম সেরা এই অলরাউন্ডার।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন এরইমধ্যে জানিয়ে দিয়েছে, শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে আসন্ন তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচেই দেশের জার্সিতে দেখা যেতে সাকিবকে। এমনকি কন্ডিশনের সঙ্গে খাপ খাইয়ে নিতে তিনি সিরিজ শুরুর আগেই তিনি দ্বীপরাষ্ট্রটিতে যেতে পারেন বলেও শোনা যাচ্ছে।

প্রায় সাড়ে ৫ মাস পর গত মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্র থেকে দেশে ফেরেন সাকিব। আগামী কয়েকদিন তিনি বিকেএসপিতে শৈশবের দুই ক্রিকেট গুরু নাজমুল আবেদিন এবং মোহাম্মদ সালাউদ্দিনের তত্ত্বাবধানে অনুশীলন করবেন। এরপর ২৯ অক্টোবর এই ৩৩ বছর বয়সী অলরাউন্ডার তার আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ক্যারিয়ার পুনরায় শুরু করতে পারবেন।

নিউইয়র্ক থেকে দেশে ফেরার পথে করোনা (কোভিড-১৯) রিপোর্ট নিয়ে আসায় তার ক্ষেত্রে কোয়ারেন্টিনে থাকা বাধ্যতামূলক নয়। ঢাকায় পা রাখার পর অবশ্য নমুনা পরীক্ষা করানোর কথা তার। সেই রিপোর্ট নেগেটিভ হলে শনিবার থেকেই অনুশীলনে নামবেন তিনি। সেখানে তার জন্য ব্যক্তিগত অনুশীলনের সব ব্যবস্থাই করে রেখেছে বিসিবি।

এমনকি ব্যক্তিগত অনুশীলনের সময় জাতীয় দলের প্রধান কোচের কাছ থেকেও পরামর্শ নিতে পারবেন সাকিব। যদিও পুরো বিষয়টা গোপনীয়তায় রাখতে চান তিনি। বিসিবিও তাই চায়। কারণ সাকিবের নিষেধাজ্ঞা এক বছরের হলেও আরও এক বছর স্থগিত নিষেধাজ্ঞাও আছে। এসময় কোনো অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা যেন সাকিবের ফেরার পথে কাঁটা হয়ে দাঁড়াতে না পারে সেজন্যই এই গোপনীয়তা।

সাকিবের ‘কামব্যাক’ যিনি সাজাচ্ছেন সেই নাজমুল আবেদিন সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, ‘আগামী শনিবার বিকেএসপিতে যাবেন সাকিব এবং এরপরই তার অনুশীলন পর্ব শুরু হয়ে যাবে। তিনি বলেন, ‘সে (সাকিব) যদি নিজের বাসায় ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিন কাটিয়ে আসে তাহলে প্রস্ততিতে ঘাটতি থেকে যাবে এবং এর ফলে আসন্ন শ্রীলঙ্কা সফরে তার ফেরা অনিশ্চিত হয়ে যাবে। ’

তিনি আরও বলেন, ‘সাকিব বিকেএসপিতে ১৪ দিন আইসোলেশনে থাকবে। সেখানে সে আলাদা রুমে থাকবে এবং তার খাওয়া-দাওয়ার ব্যবস্থাও থাকবে আলাদা। একমাত্র আমি এবং সালাউদ্দিন তার কাছে যেতে পারব এবং আমরা সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে চলব। ফলে আইসোলেশনে তেমন একটা সমস্যা হবে বলে মনে হয় না। ’

এদিকে শ্রীলঙ্কা সফরেই সাকিবের ফেরা নিয়ে নাজমুল আশাবাদী হলেও এখনই নিশ্চিত করে কিছু বলতে পারছেন না প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু। তিনি জানান, অক্টোবরে নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ শেষ হলেই কেবল সাকিবের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবে টিম ম্যানেজম্যান্ট।