৯ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ  সকাল ৯:০২  ৮ই রবিউস-সানি, ১৪৪২ হিজরী
২৪শে নভেম্বর, ২০২০ ইং

সাবেক এমপি লায়ন হারুনের নেতৃত্বে শহীদ যুবদল নেতাদের পরিবারের পাশে ফরিদগঞ্জ উপজেলা বিএনপি

নিজস্ব প্রতিনিধি :

নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবী আদায়ের আন্দোলনে ২০১৩ সালের ২৫ অক্টোবর বিএনপি’র কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসাবে ফরিদগঞ্জে মিছিল-সমাবেশে ত্রি-মুখী সংর্ঘষে যুবদল নেতা আরিফ, জাহাঙ্গির ও বাবুল নিহত হয়। গতকাল রবিবার তার ৭ম শাহাদাৎ বার্ষিকীতে উপজেলা, পৌর বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদলসহ বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীদের উপস্থিতিতে কবর জিয়ারত, মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয় এবং বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির ব্যাংকিং ও রাজস্ব বিষয়ক সম্পাদক, সাবেক এমপি লায়ন মো. হারুনুর রশিদ এর ব্যক্তিগত তহবিল থেকে প্রত্যেক পরিবারকে নগদ ৫ হাজার টাকা করে আর্থিক সহযোগীতা প্রদান করা হয়।

এসময় সংক্ষিপ্ত আলোচনায়, ‘ফরিদগঞ্জ উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি আলহাজ আজিজুর রহমান আজিজ বলেন, ফরিদগঞ্জের মাটি ও মানুষের জনপ্রিয় নেতা, বিএনপি’র জাতীয় নির্বাহী কমিটির ব্যাংকিং ও রাজস্ব বিষয়ক সম্পাদক, সাবেক এমপি লায়ন মো. হারুনুর রশিদ এর নেতৃত্বে আমরা সবসময় শহীদ যুবদল নেতা জাহাঙ্গীর, আরিফ ও বাবুলের পরিবারের পাশে থাকব ইনশাআল্লাহ।

২০০৮ সাল থেকে তিনি আমাদের সকল নেতাকর্মীদের ভালমন্দ, সুবিধা, অসুবিধা, খোঁজখবর, মিথ্যা মামলার খরচ, আহতদের উন্নত চিকিৎসা, বিভিন্ন সামাজিক অনুষ্ঠানে সহযোগীতা, নিহত নেতাকর্মীদের আর্থিক সহযোগীতা ও এলাকার অসহায় মানুষের মাঝে নানা ধরনের সহযোগীতা অব্যাহত রেখেছেন। কর্মীবান্ধব নেতা লায়ন হারুন প্রতিটি ইউনিয়নের নির্যাতিত নেতাকর্মীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে তাদের খোঁজখবর রেখেছেন।’

আপনারা জানেন, ‘সম্প্রতি করোনা মহামারীর এই দুঃসময়েও তিনি শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের আদর্শে অনুপ্রাণীত হয়ে বিএনপি চেয়ারপার্সন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশে তিনি এলাকার গরীব অসহায় মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেছেন। এলাকার জনপ্রিয় ব্যক্তিত্ব প্রাণপ্রিয় নেতা সাবেক এমপি লায়ন হারুনুর রশিদের নেতৃত্বে আমরা ঐক্যবদ্ধভাবে সবসময় নির্যাতিত নেতাকর্মীদের পাশে থেকে সংগঠনের কাজে অঙ্গীকরাবদ্ধ।’

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, ফরিদগঞ্জ উপজেলা বিএনপি’র সিনিয়র সহ-সভাপতি মজিবুর রহমান মজিব, জাকির হোসেন ভিপি, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক শাহ আলম মুকুল, পৌর বিএনপি’র সভাপতি নাছির উদ্দিন পাটওয়ারী, সিনিয়র সহ-সভাপতি বিল্লাল কোম্পানী, সহ-সভাপতি সেলিম মাহমুদ রাঢ়ী, যুগ্ম সম্পাদক এমএ টুটুল পাটওয়ারী, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক হুমায়ুন কবির কাজী (সভাপতি ৮নং পাইকপাড়া দ. ইউনিয়ন বিএনপি ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান), পৌর বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক পেয়ার আহমেদ তালুকদার, উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক ও উপজেলা যুবদল নেতা ফজলুর রহমান, বিএনপি নেতা সেলিম পাটওয়ারী, আব্দুল গফুর, যুবদল নেতা, শাহাদাৎ হোসেন ভুঁইয়া, মনির হোসেন গাজী, মৃত্যঞ্জয়ী যুবদল নেতা তারেক হোসেন মৃধা, কলেজ ছাত্রদলের নাছির হোসেন, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আব্দুল কাদির, মাসুম খান, ৮নং পাইকপাড়া দক্ষিণ ইউনিয়ন বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক আবুল হোসেন ভুইয়া, সিনিয়র সহ-সভাপতি আব্দুল মান্নান, সাংগঠনিক সম্পাদক ইকবাল হোসেন লিটন, ইউনিয়ন নেতৃবৃন্দের মধ্যে ছিলেন, সেলিম খান, সেলিম জিতু, মাহবুব রব্বানী, অলি কাজি, আব্দুল মতিন মিজি,বাচ্চু দেওয়ান, আক্তার হোসেন, মিজানুর রহমান সেতু, আবু তাহের খান, আলমগীর দর্জি, আলমগীর হোসেন, মিজানুর রহমান, আমির হোসেন, জামাল হোসেন, সোহরাব হোসেন, জাকির হোসেন দর্জি,শরীফ হোসেন, আব্দুল মমিন। ১৫নং রূপসা উত্তর ইউনিয়ন বিএনপি’র সিনিয়র সহ-সভাপতি জাকির হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল জলিল, স্বেচ্ছাসেবক দলের আনোয়ার হোসেন সজীব, মাসুদ আলম. শেখ ফরিদ আহমেদ, আমির হোসেন আমু, সেকান্দার মোল্লা, গোলাম মোস্তফা টেলু, আব্দুস সালাম মোল্লা, গোবিন্দপুর উত্তর ইউনিয়ন বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ আহমেদ প্রমুখ।

উল্লেখ্য, শহীদ জাহাঙ্গীরের বাড়ি ফরিদগঞ্জ উপজেলা ৮নং পাইকপাড়া দক্ষিন ইউনিয়নের গাজীপুরে এবং আরিফ ও বাবুলের বাড়ি ১৫নং রূপসা উত্তর ইউনিয়নের বারপাইকা গ্রামে।