১০ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ  রাত ৪:৪৮  ৮ই রবিউস-সানি, ১৪৪২ হিজরী
২৫শে নভেম্বর, ২০২০ ইং

ফরিদগঞ্জে কোন ভাবেই মাদক ব্যবসায়ীদের ছাড় দেওয়া হবে নাঃ ওসি মোহাম্মদ শহীদ হোসেন

নিজস্ব প্রতিনিধি:

চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ উপজেলার গোবিন্দপুর উত্তর ইউনিয়নের ধানুয়া এলাকায় ফরিদগঞ্জ থানা পুলিশ মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনা এবং সচেতনতামূলক প্রচারনা করেছে। 

৮ নভেম্বর (রবিবার) বিকেলে ইউনিয়নের বিভিন্ন পাড়া মহল্লায় পুলিশের একটি  বিশাল  টীম মাদক, সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, ইভটিজিং, নারী ও শিশু নির্যাতন, চুরি-ছিনতাই প্রতিরোধে সচেতনাতামূলক প্রচারনা করেন।

ফরিদগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ শহীদ হোসেনের নেতৃত্বে একাধিক পুলিশ অফিসার ও বিপুল সংখ্যক নারী ও পুরুষ পুলিশ সদস্যের অংশগ্রহনে প্রথমে অভিযান শুরু হয় গোবিন্দপুর উত্তর ইউনিয়নের ধানুয়া  থেকে এবং পূর্ব ধানুয়ায় গিয়ে শেষ হয় এ অভিযান।

এদিকে  মাদক ব্যবসায়ী পশ্চিম ধানুয়া গ্রামের মিজি বাড়ির বশির উল্ল্যা মিজির ছেলে মাদক ব্যবসায়ী রাছেল মিজি ও  মাসুদ মিজির বাড়িতে অভিযান পরিচালনা কালে পুলিশ দেখে মাসুদ মিজি পালিয়ে যাওয়ার সময় পুলিশের দাওয়ায় পাশের মাছের ঘেরে লাফিয়ে পড়ে পালিয়ে যায়। এ সময় ইউনিয়নের বিভিন্ন স্থানে সচেতনতামূলক পথ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এলাকাবাসীর উদ্দেশ্যে ফরিদগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ শহীদ হোসেন বলেন, ‘পুলিশ সুপার মহোদয়ের ডাইরেক্ট নির্দেশ সেই টেকনাফ থেকে মাদকের যতরকম হাত বদল হয়। এই চেইনের মধ্যে যাকে পাব,সে যেই হোক। তাকে ছাড় দেয়া হবে না।’

তিনি আরো বলেন, যারা মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত তাদের ব্যাপারে সরকার ও রাষ্ট্র জিরোট্রলারেন্স ঘোষনা করেছে। সুতরাং আমরা মাদকের সাথে সম্পৃক্তদের সর্বোচ্চ সর্তক করছি। ছেলে, স্বামী অথবা মেয়ে হোক, তাকে মাদক থেকে বিরত রাখতে হবে। তা না হলে কোন ছেলে মাদকের সাথে জড়িত থাকে, তার বাবা, মা, ভাই এবং বোনকে আইনের আওতায় নিয়ে যাব। আমরা চাই আপনাদের পরিবারের কোন সন্তান,আত্মীয়-স্বজন এবং এলাকাবাসী ক্ষতিগ্রস্ত না হয়।

অভিভাবকদের উদ্দেশ্যে ওসি বলেন, সন্ধ্যার পর ছেলে সন্তানদের পড়ার টেবিলে বসাতে হবে। তারা যেন এখানে-সেখানে আড্ডা না দেয় এবং গুপছিতে না থাকে। প্রত্যেক অভিভাবককে নৈতিক দায়িত্ব পালন করতে হবে। বিভিন্ন  এলাকার অনেকে চুরি ও মাদকের সাথে জড়িত। চোরাই পন্য ক্রয়-বিক্রয় হচ্ছে। এসব বন্ধ করা না হলে চুরি,মাদক ,সন্ত্রাস ও ইভটিজিং এর সাথে জড়িত থাকলে তাদেরকে ধরে নিয়ে যাওয়া হবে থানায় কেউ তদ্বির করতে যাবে না।

অভিযানকালে উপস্থিত ছিলেন, ওসি (তদন্ত) মো. বাহার মিয়া, প্রেসক্লাবের সভাপতি কামরুজ্জামান, এস. আই আব্দুল কুদ্দুছ, আব্দুর রাজ্জাকসহ অন্যান্য অফিসার ও পুলিশ সদস্যবৃন্দ।