১০ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ  সকাল ৬:১৬  ৯ই রবিউস-সানি, ১৪৪২ হিজরী
২৫শে নভেম্বর, ২০২০ ইং

ফরিদগঞ্জের দুই প্রেসক্লাব ঐক্যবদ্ধ

নিজস্ব প্রতিনিধি:

দীর্ঘ বছরের বিভেদের পর অবশেষে ঐক্যবদ্ধ হয়েছেন ফরিদগঞ্জ প্রেসক্লাব এবং প্রেসক্লাব ফরিদগঞ্জের সাংবাদিকরা।

১৩ নভেম্বর (শুক্রবার) সকালে ফরিদগঞ্জ প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত যৌথ সভায় আনুষ্ঠানিকভাবে এ ঐক্যের ঘোষনা দেওয়া হয়। এর ফলে ফরিদগঞ্জের সাংবাদিকদের একমাত্র সংগঠন হলো ‘ফরিদগঞ্জ প্রেসক্লাব’।

ফরিদগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি মো.কামরুজ্জামান এর সভাপতিত্বে এবং প্রেসক্লাব ফরিদগঞ্জের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান সোহাগের সঞ্চালনায় ঐক্যের যৌথ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এসময় ফরিদগঞ্জ প্রেসক্লাব ও প্রেসক্লাব ফরিদগঞ্জের সাংবাদিক বৃন্দরা বলেন, আমাদের সদিচ্ছাই আমাদের ঐক্যবদ্ধ করেছে। এটি একটি ঐতিহাসিক দৃষ্টান্ত হিসেবে চির স্মরণীয় হয়ে থাকবে। সাংবাদিকদের লেখনীর মান উন্নয়ণে সাংবাদিকতাকে অধিকতর কল্যাণমুখী করতে সাংবাদিকদের সমস্যা ও সংকট নিরসনে সাংবাদিকতার নৈতিকতা উন্নয়নে এবং সর্বোপরি অপ-সাংবাদিকতা প্রতিরোধে এ ঐক্য সর্বাত্মক ইতিবাচক ভূমিকা পালন করবে। এই ঐক্যকে সম্মুন্নত রাখতে তারা উপস্থিত সকল সংবাদকর্মীর প্রতি আহবান জানান।

এসময় সকল সংবাদকর্মীরা অঙ্গীকার পত্রে সাক্ষর করেন । স্বাক্ষরকারীরা হলেন- মো. কামরুজ্জামন, মামুনুর রশিদ পাঠান, এম কে মানিক পাঠান, নুরুন্নবী নোমান, প্রভাসক মহি উদ্দিন, আবুহেনা মোস্তফা কামাল, প্রবীর চক্রবর্তী, আঃ ছোবাহান লিঠন, নাছির উদ্দিন পাঠান, এস.এম মিজানুর রহমান, জাকির হোসেন সাঈদ পাটওয়ারী, এ কে এম সালাউদ্দিন, আমান উল্ল্যা আমান, মশিউর রহমান মনা , নারায়ন রবিদাশ, নুরুল ইসলাম ফরহাদ, আতাউর রহমান সোহাগ, আলী হায়দার পাঠান টিপু, দেলোয়ার হোসেন বেলাল, এনামূল হক খোকন, মো. জসিম উদ্দিন মিজি, ইমাম হোসেন সৌরভ, এস এম ইকবাল হোসেন, এমরান হোসেন লিটন,আনিছুর রহমান সুজন, ঋষিকেশ, শাহাদাত হোসেন, মো. শিমুল হাছান, মো. মাছুম তালুকদার, মো. নূরে আলম টুটুল, জাকির হোসেন সৈকত, গাজী মমিন, লিঠন কুমার দাশ, তাপস চক্রবর্তী, শকিল হাছান, আবু ছালেহ মো.বারাকাত উল্ল্যা, আক্তার হোসেন, রুহুল আমিন খান স্বপন, জসিম উদ্দিন, রিফাত কান্তি সেন, মোশারফ হোসেন মৃধা, মা. মনির হোসেন, আব্দুল কুদ্দুস মজুমদার, কেএম হাছান, মো. আব্দুছ সালাম, আব্দুল কাদির, মেহেদী হাছান।

উল্লেখ্য: বিভেদপূর্ণ সম্পর্কের কারণে ফরিদগঞ্জে সাংবাদিকদের দু’টি ধারা চলে আসছিল দীর্ঘ বছর ধরে। বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, জনপ্রতিনিধি, এমনকি প্রাশাসনিক কর্মকর্তাদেরও কেউ কেউ এ বিভেদ নিরসনে উদ্যোগী হয়েছিলেন। অবশেষে উভয় প্রেসক্লাবের নেতৃবৃন্দের আন্তরিক সদিচ্ছায় দীর্ঘ বিরোধের অবসান হলো।