৩১শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ  বিকাল ৩:৫৬  ৩রা জিলক্বদ, ১৪৪২ হিজরী
১৪ই জুন, ২০২১ ইং

ফরিদগঞ্জে পাওনা টাকা চাইতে গিয়ে এলাকা বাসির হাতে আটক এক, রাতে মুসলেকা দিয়ে থানা থেকে নিষ্কৃতি

নিজস্ব প্রতিনিধি:

চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জে প্রবাসীর বাড়িতে পাওনা টাকা চাইতে গিয়ে দেনাদার ও পাওনাদারের হট্রগোলে এলাকাবাসীর হাতে আটক ব্যক্তিকে রাতেই উভয় পক্ষের সম্মতিতে স্থানীয় ভাবে আপোষের শর্তে থানা থেকে মুচলেকা নিয়ে জিম্মাদারের নিকট বুঝিয়ে দেওয়া হয়।

২৫ মে মঙ্গলবার সন্ধার পূর্ব মুহুর্তে ফরিদগঞ্জ উপজেলার ১১ নং চরদুখিয়া ইউনিয়নের হাওলাদার বাড়িতে জনৈক সুজন মাষ্টারের নেতৃত্বে পাশ^বর্তী জেলা লক্ষিপুরের রায়পুর উপজেলা থেকে ৯ টি মটরসাইকেল নিয়ে ১২/১৩ জনের একটি দল সৌদি প্রবাসী জাফর হাওলাদারের বাড়িতে আসে এবং পাওনা টাকা নিয়ে বাকবিতন্ডা হয়।

এসময় স্থানীয় এলাকাবাসী তাদের সন্ত্রাসী ভেবে ধাওয়া দিয়ে সুজন মাষ্টার নামে একজকে আটক করে পুলিশে দেয় এবং তাদের রেখে যাওয়া ৪টি মোটর সাইকেল থানা পুলিশ হেফাজতে নিয়ে আসে।

প্রবাসী জাফর হাওলাদারের পরিবারের লোকজন জানায়, আমরা ৯৯৯ এ ফোন করলে ফরিদগঞ্জ থানায় এস আই আবদুর রাজ্জাক সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে এসে আটক কৃত সুজন ও তাদের রেখে যাওয়া ৪টি মটর সাইকেল উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

জানা যায়, আটক সুজনের বাড়ি লক্ষিপুর জেলার রায়পুর উপজেলা পৌরসভার ৬ নং ওয়ার্ডের মুন্সীবাড়ি।

এ ব্যাপারে ফরিদগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ শহীদ হোসেন জানান, সুজন নামে এক ব্যক্তিকে গ্রামবাসী আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে, আমরা যাচাই বাচাই করে জানতে পারি জাফর হাওলাদারের সাথে সুজন মাষ্টারের আর্থিক দেনাপাওনার জামেলা রয়েছে এবং তারা পরস্পরের আত্নীয় সম্পর্ক। পাওনা টাকা নিয়ে ভুল বুঝাবুঝির সৃষ্টি হয়। ঐ রাতে জাফর হাওলাদারে স্ত্রী লিজা বেগমের সম্মতিতেই স্থানীয় ভাবে সমাধানের লক্ষে উভয়ের কাছথেকে মুচলেকা নিয়ে আগামী ৪ জুন শুক্রবার বিকেলে সমাধানের লক্ষে জিম্মায় দেওয়া হয়েছে।