৯ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ  দুপুর ১:১৫  ১৬ই সফর, ১৪৪৩ হিজরী
২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ ইং

ফরিদগঞ্জে ৭দিন নিখোঁজের পর জেলের লাশ উদ্ধার

চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জে নিখোঁজের ৭দিন পর অনাথ চন্দ্র দাস (৭০) নামের এক বৃদ্ধার লাশ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ।

২৫ জুলাই রোববার উপজেলার পাইকপাড়া দক্ষিণ ইউনিয়নের সাহাপুর গ্রামের ওয়াপদা খাল থেকে অর্ধগলিত অবস্থায় লাশটি উদ্ধার করেছেন পুলিশ। সংশ্লিষ্ট এলাকার সোহাগ ও ইমাম হোসেন রোবার সকালে কাজ করতে গেলে ওয়াপদা খালের মধ্যে কচুরি পানা বেষ্টিত একটি অর্ধগলিত লাশ দেখতে পেয়ে ওঁই এলাকার ইউপি সদস্য উজ্জ্বলকে অবহিত করে।

নিহত ব্যক্তি একই ইউনিয়নের খুরুমখালী গ্রামের প্রয়াত গোপাল চন্দ্র দাসের ছেলে। পেশায় সে জেলে। অনাথ দাস তিন সন্তানের জনক।

পরিবারের লোকজনের মধ্যে স্বপ্না রানী দাস, সুমি রানী দাসসহ অনেকেই জানান, গত ১৯ জুলাই সোমবার সকালে বাড়ি থেকে নাস্তা করার উদ্দেশ্যে বেড় হয়ে আর বাড়ি ফিরে আসেনি অনাথ চন্দ্র দাস। আমরা গত এক সপ্তাহ যাবৎ আমাদের বিভিন্ন আত্নিয়স্বজন এমনকি ভারতে পর্যন্ত আমাদের লোকজনের কাছে খোঁজ নিয়ে ও উনার সন্ধান পাইনি। অত:পর এক আত্নিয় আমাদের ফোন করে বলেন, অনাথের লাশ পাওয়া গেছে।

তারা আরোও জানান, নিহত অনাথের সাথে একই বাড়ির কৃঞ্চচন্দ্র দাসের ছেলে সুভল চন্দ্র দাসের জমি নিয়ে বিরোধ চলছিল দির্ঘদিন যাবৎ। নিখোঁজের ১৫/২০দিন পূর্বেও এ নিয়ে কথা কাটা-কাটি ও শালিস হয়, কিন্তু সমাধান হয়নি। এরই জেরে হয়তো হত্যা করে লাশ ঘুম করতে চেয়েছিল পতিপক্ষ।

এ বিষয়ে পিবিআই ইন্সেফেক্টর মোঃ আতিকুর রহমান জানান, আমরা সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে অর্ধগলিত লাশ দেখতে পাই। লাশের বুকে , মাথায় ও হাতে-পয়ে আঘাতের চিহ্নি রয়েছে। ধারণা করা যাচ্ছে , আঘাত করে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটায় আমাদের ছায়া তদন্ত কাজ চলছে , আমরা থানা পুলিশকে সহায়তা করছি।

থানা অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ শহীদ হোসন অনাথ দাসের লাশ উদ্ধার করে ও মর্গে প্রেরণ করার কথা নিশ্চিত করে বলেন এ ঘটনায় মামলা পক্রিয়াধীন রয়েছে।

খালে লাশের খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন চাঁদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ সোহেল মাহদুদ।