১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ  সন্ধ্যা ৭:৪২  ৭ই জমাদিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি
২রা ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

ফরিদগঞ্জে মাছের ঘেরকে কেন্দ্র করে দু‘পক্ষের মারামারিতে আহত- ১

চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ পৌর এলাকার চরমথুরায় মাছের ঘেরকে কেন্দ্র করে দু‘পক্ষের মারামারিতে একজন রক্তাক্ত জখম হয়েছে।

১৬ আগষ্ট সোমবার ভোর সোয়া ৪টায় স্থানীয় চরমথুরা এলাকায় সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মাহাবুবুল বাশার কালু পাটওয়ারীর ছেলে মাকসুদুল বাশার বাঁধন পাটওয়ারীর সাথে একই বাড়ির বিশিষ্ট ব্যবসায়ী বাবুল পাটওয়ারীদের সাথে মাছ চাষের ঘের নিয়ে বিরোধ চলে আসছে দির্ঘদিন যাবৎ। এরই জের ধরে সোমবার ভোর ৪ টায় মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে বাধঁন পাটওয়ারী, মোঃ ছালাউদ্দিন পাটওয়ারী প্রকাশ বিটু (৬৫) কে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করেছে। সাউলাউদ্দিন পাটওয়ারী বিটুর চিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুঁটে এসে তাকে উদ্ধার করে ফরিদগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করায়। মাথা ও ঘাড়ে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

এ বিষয়ে মোঃ ইসমাইল হোসেন মিলন ও মোঃ মিজানুর রহমান জানান, মাকসুদুল বাশার বাঁধন পাটওয়ারীসহ ৪/৫ জনের একটি সংঘবদ্ধ সন্ত্রাসী গ্রুপ পূর্ব পরিকল্পিতভাবে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে সালাউদ্দিন পাটওয়ারী প্রকাশ বিটুকে রক্তাক্ত জখম করে। আমরা ধরতে গেলে আমাদের শরীর রক্তে রঞ্জিত হয়ে পড়ে।

ঘটনার বিষয়ে বাবুল পাটওয়ারী জানান, বিনা অপরাধে বার বার আমাদের সাথে একতরফা জগড়ায় লিপ্ত হয়ে মারামারি করছে বাঁধন। আমার ভাই সালাইদ্দিনকে প্রাণে মেরে ফেলার জন্যই ভোর রাতে এ সন্ত্রাসী হামলা চালিয়েছে। ইতিপূর্বেও মাকসুদুল বাশার বাঁধন পাটওয়ারী অস্ত্রসহ আমাদের উপর হামলা করতে এলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে পুলিশের উপরও হামলা চালায়। এতে থানায় ২টি মামলা রয়েছে তার বিরুদ্ধে। বার বার আমাদের সাথে বিনা অপরাধে জগড়ায় লিপ্ত হয়ে আমাদের সামাজিক আত্নমর্যাদা নষ্ট করা হচ্ছে। আমরা আইন প্রয়োগকারী সংস্থার নিকট এর সুষ্ঠ বিচার দাবী করছি। আমি মামাল দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছি।

এ বিষয়ে মাকসুদুল বাশার বাঁধন পাটওয়ারী জানান, আমি আমার বাড়িতে জাতীয় শোক দিবসে বঙ্গবন্ধুর ভাষন মাইকে প্রচার করছিলাম। এ সময় সালাউদ্দিন পাটওয়ারী বিটু বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কটুক্তি করাসহ আমার গায়ে হাত তোলে, এতে আমি তাকে প্রতিহত করতে গেলে সে আহত হয়ে পড়ে। সে আমার উপর পরিকল্পিত হামলা চালায়। ইতিপূর্বেও আমার মাছের ঘেরের বাঁধ কেটে দিয়ে বিবাদ সৃষ্টি করে আমাকে অন্যায় ভাবে মামলা দিয়ে হয়রানী করা হয়েছে। আমি এর ন্যায় বিচার দাবী করছি।

এ বিষয়ে, থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ শহীদ হোসেন জানান, থানায় অভিযোগ করা হয়েছে। ইতি পূর্বেও বাধঁনের বিরুদ্ধে বিষ্ফোরক ও অস্ত্র আইনে একাধিক মামলা রয়েছে। অভিযোগের আলোকেই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।